মোঃ সাজিদ হাসান শান্ত
(শ্রীবরদী উপজেলা প্রতিনিধি):
এস এইচ শান্ত’র নির্দেশনায় শ্রীবরদী উপজেলা প্রশাসনের ইমারজেন্সি সেচ্ছাসেবক টিম ঈদের পরবর্তী সরকার নির্দেশিত ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে প্রশাসনের সাথে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মাঠে কাজ করছে রক্তসৈনিক বাংলাদেশ, শ্রীবরদী উপজেলা টিম। লকডাউন বিধি-নিষেধ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে শ্রীবরদী পৌর সদর সহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে হ্যান্ড মাইক দিয়ে প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে সংগঠনটির সদস্যরা।

উপজেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতগুলোতে হ্যান্ড বাইক নিয়ে ছুটে যাচ্ছে এক ঝাঁক রক্তসৈনিকের তরুণরা। করোণা হতে বাঁচতে হলে পড়তে হবে মাক্স, মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি এমন প্রচারণায় কাজ করছে তারা। মূলত কোন কিছুর বিনিময় নয় মানুষের স্বার্থ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে,করোনা প্রাদুর্ভাব থেকে মানুষকে সচেতন করতে এই সংগঠনটির পথ চলা। ইতিমধ্যেই রক্তসৈনিক বাংলাদেশ, শ্রীবরদী উপজেলা শাখা প্রশংসা কুড়িয়েছে উপজেলা বাসির। লকডাউন চলাকালে প্রতিদিন সকাল থেকেই রাত আটটা পর্যান্ত মাঠে কাজ করে বেশ কয়েকজন সদস্য। উপজেলা প্রশাসনের ইমারজেন্সি স্বেচ্ছাসেবী সাপোর্ট টিমের পক্ষে হয়ে এরা কাজ করেন।

সংগঠনটির উপজেলা কমিটির সভাপতি সাজিদ হাসান শান্ত বলেন, বর্তমানে দেশে মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আমাদের দেশের মানুষ অনেকটাই অসহায়, সামজিক অসচেতনতার কারণে প্রতিনিয়ত বাড়ছে করোনা রোগী, প্রতিনিয়ত ঘটছে শত শত মানুষের মৃত্যু । মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা উপজেলা প্রশাসনের সাথে স্বেচ্ছাসেবক টিম হিসেবে কাজ করছি। ইতিমধ্যে আমরা বিভিন্ন সময়ে জনসাধারণের মাঝে মাক্স বিতরণ করেছি।
কারণ মাক্সই হলো করোনা প্রতিরোধের প্রধান হাতিয়ার।

Leave a Reply