মোঃমাসুদ রানা,রামগড় প্রতিনিধিঃ

কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচি ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রবি/২০২১-২০২২ মৌসুমে গম,ভুট্রা সরিষা, সুর্যমূখী,চিনা বাদাম,শীতকালীন পেঁয়াজ,মুগ মুসুর ও খেসারি,ফসলের আবাদ এবং উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে কৃষি প্রনোদনার আওতায় খাগড়াছড়ির রামগড়ে চলতি মৌসুমে ২৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্ত্বিক কৃষদের মাঝে বিনামূল্যে রাসায়নিক সারও বীজ বিতরণ করা হয়েছে। আজ ১৮নভেম্বর ( বৃহস্পতিবার) দুপুর সাড়ে ১১.৩০ টার দিকে উপজেলা কৃষি অফিস প্রাঙ্গনে উপজেলা কৃষি অফিসার আলী আহমেদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সার ও বীজ বিতরণ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন রামগড় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা মোঃসানাউল হক এর সঞ্চালনায় প্রনোদনা বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন,কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ রাশেদ চৌধুরী, পিআইও মনসুর আহমেদ,বিআরডি অফিসার মফিজুর রহমান,আইসিটি প্রোগ্রামার রায়হান উদ্দিন, এলএসডি মোঃ আসাদুজ্জামান ভূইয়া , উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মোহাম্মদ শরীফ উদ্দিন ও রামগড় উপজেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন প্রমুখ।

প্রনোদনা বিতরণকালে প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা বলেন সরকার বিনামুল্যে বীজ স‍ার বিভিন্ন কৃষি উপকরণ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ সহ নানা রকম প্রদক্ষেপ গ্রহন করে চলেছেন, ফলে কৃষক পরিবারের ছেলে মেয়েরা পড়া লেখা করে উচ্চ শিক্ষিত হয়ে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্কুল কলেজে শিক্ষক হিসেবে চাকরি করতে সক্ষম হচ্ছেন,এসব উন্নয়নে সর্ব ক্ষেত্রেই সরকারের বিরাট ভুমিকা রয়েছে। তিনি আরো বলেন, আগে সার বীজের জন্য কৃষক জমি চাষ করতে সমস্যায় পড়তে হতো, এখন আর সেই দিন নেই,সার ঘুরছে এখন কৃষকের পিছে।

এদিকে প্রনোদনা গ্রহন করা রামগড় পৌরসভা উপজেলাস্থ কৃষকরা জানান প্রতিবছরের মত চলতি বছরও রবি মৌসুমে কৃষকদের মাঝে সরকার কৃষি উপকরণ বিতরণ করেছেন। এতে আমাদের মত ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক পরিবারগুলো অনেক উপকৃত হয়েছে। তাছাড়া ধান উৎপাদনে সরকার বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করছেন, সে জন্য আমরা অনেক খুশি,

রামগড় উপজেলা কৃষি অফিসার আলী আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, চলতি মৌসুমে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ২৫০জন কৃষকদের মাঝে প্রনোদনার আওতায় ১বিঘা জমিতে চাষ করার জন্য বিনামূল্যে রবি মৌসুমে ভুট্রা বীজ ২কেজি,ও সরিষা ১ কেজি, ডিএপি সার ২০ কেজি ও ১০ কেজি এমওপি সার বিতরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ ভূট্রা ২০০জন,কে ২কেজি,ডিএপি ২০কেজি,এমওপি ১০কেজি,সরিষা ৫০জন,১কেজি,ডিএপি ১০কেজি,এমওপি ১০কেজি।

Leave a Reply