মাহী তানভীর, চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি:
রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় কালুহাটি থেকে আড়ানী পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার ব্যাপী রাস্তার দু’পাশে গাছ জুড়ে ধর্মীয় বাণীর সাইনবোর্ড দেখা যাচ্ছে। ক্ষুদ্র আকৃতির লেমেনেটিং করা সাইনবোর্ড গুলো নির্দিষ্ট দূরত্বে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। যাতায়াত করার সময় পথচারীদের চোখ আটকে যাচ্ছে সাইনবোর্ড গুলোর দিকে। প্রায় সকলেই মনে মনে পড়ে নিচ্ছে সাইনবোর্ডের লেখাগুলো। আল্লাহর ৯৯ টি গুণবাচক নাম এবং কোরআনের বিভিন্ন সূরার ছোট আয়াতগুলো শোভা পাচ্ছে সাইনবোর্ডে। নিচে রয়েছে বঙ্গানুবাদ। এ যেন ধর্ম প্রচারের এক অভিনব কায়দা। কালুহাটি গ্রামের ৯ জন যুবকের ব্যক্তিগত উদ্যোগে করা হয়েছে এ মহান কাজ। তাদের ভূয়সী প্রশংসায় পঞ্চমুখ এলাকাবাসী। এলাকাবাসীরা বলেন গত রমজান মাসের এক সকালে তারা হঠাৎ দেখতে পায় সাইনবোর্ড গুলো। যুবকরা রাতে তারাবি নামাজ শেষ করে সাইনবোর্ড গুলো গাছে ঝুলিয়ে দেয়। যুবকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ধর্মীয় ভালোবাসা এবং ধর্মীয় প্রচার প্রসারের উদ্দেশ্যে তারা এ কাজটি করেছে। তারা আরো বলেন, আল্লাহর গুণবাচক নাম এবং ছোট আয়াত গুলো যেন পথচারীদের অন্তরে জায়গা পায়। জীবনের কোনো নিশ্চয়তা নেই। অনেকেই বাসা থেকে বের হয়ে ফেরেন লাশ হয়ে। প্রতিনিয়ত রাস্তাঘাটে ঘটছে অসংখ্য দুর্ঘটনা। ধর্মীয় বাণীর রহমতের জন্য হয়তো বেঁচে যেতে পারে অনেকের জীবন। কোন পথচারী একবার সাইনবোর্ড গুলোর দিকে তাকিয়ে মনের অজান্তে আল্লাহর জিকির করে ফেলতে পারে। সাময়িক জিকির কারো তপ্ত হৃদয়কে দিতে পারে হিম শীতল শান্তির পরশ। স্হানীয় এক মসজিদের ইমাম বলেন এটা সদকায়ে জারিয়ার সওয়াব। যারা এ মহান কাজটি করেছেন মৃত্যুর পরেও কবরে সওয়াব পাবেন। যেসকল পথচারীরা পড়বেন তারাও সওয়াবের ভাগিদার হবেন। পীর-আউলিয়ারা ধর্ম প্রচারে তাদের পুরো জীবন উৎসর্গ করে গেছেন। জীবনের ক্ষুদ্র একটি সময় আমরাও ব্যায় করতে পারি ধর্ম প্রচারে। যাতে শুভ হয় পরকাল যাত্রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *