ভ্রাম‍্যমান প্রতিনিধি চট্টগ্রাম :
বাংলাদেশ রেলওয়ের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বেশ কয়েকমাস ধরে পেনশন ও বেতন ভাতা পাচ্ছেন না। আজ সোমবার ( ৩১ মে) রেলওয়ে শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিনিধিদল রেলওয়ে উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেন।
গত কয়েক মাস ধরে বকেয়া বেতন না পাওয়ায় রেলওয়ে অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এতে রেল কর্মকর্তারা অদক্ষতা ও পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ভুক্তভোগীরা।
এদিকে ঈদের আগেও বেশিরভাগ কর্মকর্তা কর্মচারীরা ঈদ বোনাস ও বেতন ভাতা পায়নি। কিছু বিভাগে বেতন পেলেও এখনো অনেক বিভাগে কর্মকর্তা কর্মচারী বেতন ভাতা পাননি। এতে করে চরম কষ্টে ও মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে ভুক্তভোগীদের।
বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জিএম(পূর্ব) ও এফএএন্ডসিইও ( পূর্ব) সাথে সাক্ষাৎ করতে গেলে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষ দায় এড়ানোর চেষ্টা করেন। এতে শ্রমিক নেতাদের তোপের মুখে পড়েন।
শ্রমিক নেতাদের তোপের মুখে এফএএন্ডসিইও ( পূর্ব ) আশ্বস্ত করেন চলতি সপ্তাহের মধ্যে দু মাসের পেনশন একত্রে পাবেন পেনশনভোগীরা এবং কয়েক দিনের মধ্যে রেলওয়ে সকল বিভাগের যেসকল কর্মচারীরা এখনো বেতন পায়নি তারাও একত্রে বেতন পেয়ে যাবেন।
বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেনঃ আমরা জিএম(পূর্ব), এফএএন্ডসিএও (পূর্ব) ও এডিশনাল এফএন্ডসিও (পূর্ব) সাথে শ্রমিকদের বেতন ও পেনশন ভাতা সমস্যা নিয়ে সাক্ষাৎ করি। উনারা আইবাস প্লাস প্লাস সিস্টেম ও কিছু ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক এর অসহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন। শ্রমিকরা এদেশের প্রধান চালিকাশক্তি। রেলওয়ে এ প্রথম কর্মচারীরা কাজ করে বেতন পায়না যা খুবই নজিরবিহীন ঘটনা। সাড়ামাস কাজ করে বেতন ও পেনশন না পেয়ে পরিবার নিয়ে সবাই খুবই কষ্টের মধ্যে আছে। তবে রেলওয়ে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষ দ্রুততম সময়ের মধ্যে সমস্যা সমাধান করবে বলে আমাদের আশ্বস্ত করেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মচারী ক্ষোভ প্রকাশ করে এই প্রতিবেদক কে বলেন, রেলওয়ে জন্ম সৃষ্টি লগ্ন হতে কখনো শুনিনি রেলের কর্মচারিদের বেতন ভাতাদি বন্ধ হতে। এটা কিসের সংকেত? কিছু বুঝতে পারছি না। আবার বলছে সংশ্লিষ্ট খাতে বাজেট না থাকলেও বেতন পাবে না কর্মচারীরা । এই ধরনের ঘটনা অলরেডি ঘটে গেছে। মেডিক্যাল বিভাগের কর্মচারীরা বাজেট না থাকার কারণে তাদের বেতন বতর্মানে বন্ধ রয়েছে। এই ধরনের ঘটনা চাকরি জীবনে প্রথম দেখলাম। আগে জানতাম তিন বছর পর বিনোদন ছুটির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট খাতে বাজেট না থাকলে বাজেট আসা সাপেক্ষে ভাতা ও ছুটি পরে পাওয়া যেত। আর এখন শুনছি বেতনের খাতে বাজেট না থাকলে সঠিক সময়ে বেতন পাওয়া আর যাবে না। কর্তৃপক্ষরা আমাদের কে নিয়ে তামাশা শুরু করে দিযেছে। আমরা নিম্ন শ্রেণির কর্মচারী আমরা এক মাস বেতন না পেলে সংসার চালানো কি যে কষ্ট তা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বুঝবে কি করে? পূর্বে যার যার ডিপার্টমেন্ট এর তারিখ অনুযায়ী সঠিক সময়ে বেতন পেয়ে গেছি। আর এখন ১ তারিখের বেতন মাস শেষ হয়ে গেলেও সঠিক সময়ে পাই না।
এ বিষয়ে পূর্বাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) জাহাঙ্গীর হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদক কে বলেন, অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারী যারা পেনশন, বেতন ভাতা পায়নি তাদের বেতন ভাতা অতিশ্রীঘ্রই দিয়ে দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *