সোহেল হোসেন লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি: জমির দখল নিতে লক্ষ্মীপুরে মোস্তাফিজ নামে এক সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে দোকানঘর ভাঙচুরের অভিযোগ উঠছে। রবিবার (২২ নভেম্বর) সকালে জেলার সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের চাঁদখালী গ্রামের আবুর বাপের গোজা নামক স্থানে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় রৌশন আক্তার (৫০) নামে ক্ষতিগ্রস্ত এক নারীর পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত সেনাসদস্য মোস্তাফিজ (৩০) ওই এলাকার আবুল কালামের পুত্র। এ ঘটনায় তার পিতাকেও অভিযুক্ত করা হয়। বর্তমানে ছুটি কাটাতে বাড়িতে আসেন মোস্তাফিজ। রৌশন আক্তার ওই এলাকার আবুল খায়েরর স্ত্রী। ভূক্তভোগী নারী রৌশন আক্তার বলেন, মোস্তাফিজ ছুটিতে এসে বিভিন্ন সময় তাদের সাথে জমি নিয়ে ঝামেলা করে। সে বাড়িতে আসলেই কোন না কোন ঘটনার জন্ম দেয়। তিনি জানান, চাঁদখালী মৌজার ১১০ নম্বর খতিয়ানের ২৪৮১ দাগের আন্দরে ৫৫ দাগের মধ্যে স্বামীর ওয়ারিশ সূত্রে মালিকানাধীন জমিতে তিনটি দোকানঘর রয়েছে। পূর্বে একটি বিক্রি করে দেন। একটি তিনি মিন্টু নামে এক ব্যক্তির কাছে ভাড়া দিয়েছেন। মোস্তাফিজ ও তার পরিবারের লোকেরা দোকানের ভিটি দখল নিতে উঠেপড়ে লেগেছে। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি নিয়ে একাধিক বার বৈঠক হয়েছে। অভিযুক্তরা বিভিন্ন সময়ে দোকানঘরগুলো দখল নেওয়ার চেষ্টা চালায়।
লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, রবিবার সকালে মোস্তাফিজ দোকানের ভেতরে ঢুকে দোকান ভাঙচুর করে। এ সময় তিনি খুবই উত্তেজিত আচরণ করেন। তাদের অভিযোগ, মোস্তাফিজ ছুটিতে আসলেই এলাকায় সেনা সদস্যের প্রভাব বিস্তার করে। সে বাড়িতে আসা মানে কোননা কোন ঝামেলার সৃষ্টি হওয়া। এলাকার মানুষকে প্রশাসনের ভয় দেখায় মোস্তাফিজ।
অভিযুক্ত মোস্তাফিজ বলেন, দোকানঘরে আমার পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত জমি রয়েছে। সেই জমি উদ্ধারে সেখানে জোরপূর্বক গড়ে তোলা টিনের বেড়া অপসারণ করি। জমিটি পূর্বে আমাদের দখলে ছিলো। আমার আমাদের জমি উদ্ধারে যা করনীয় তা করবো।
লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসীম উদ্দীন বলেন, ভাঙচুরের অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply