সোহেল হোসেন লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ
জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ লোকজনের দ্বারা অপপ্রচারের শিকার হয়ে সুষ্টু ঘটনা তদন্তের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সোমবার (৩ মে) দুপুরে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের চর মনসা গ্রামে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এ দাবি জানান মো: জিল্লুর রহিম নামে এক ভূক্তভোগী। এসময় তিনি অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে। জিল্লুর ওই এলাকার মৃত আবদুল গণি মিয়ার পুত্র।

তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি বিভিন্ন অনলাইন টিভি, পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘লক্ষ্মীপুরে ভূমিদস্যু জিল্লুরের হাতে ৪ গ্রামের লক্ষাধিক লোক জিম্মি’ শিরোনামে সংবাদ পরিবেশন করা হয়। যা মিথ্যা বানোয়াট ও তার বিরুদ্ধে ষড়ষন্ত্র করার একটি অংশ।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘তাদের খরিদকৃত ও ওয়ারিশ সূত্রে সম্পত্তি নিয়ে একই এলাকার মো: ফারুক, হাসিনা বেগম, আবুল কালাম, আবুল বাশার, দুধা মিয়া, ফাতেমা বেগমের সাথে দেওয়ানী আদালতে ৫-৬ টি মামলা রয়েছে। সম্প্রতি ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে ওই এলাকার মো: মোস্তফার পুত্র মো: সুমন এবং মৃত মফিজ উল্যার পুত্র আবদুল করিমের তার কাছে অনৈতিক ভাবে টাকা দাবী করে টাকা না দিলে তার ক্ষেতের ধান লুট ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এর পর সুমন ও করিম আমাদের বিরুদ্ধে আদালতের মামলার বিবাদীদের সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিকদের ভুল তথ্য দিয়ে আমাকে ভূমিদস্যু সাজিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ পরিবেশন করে যার সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। এ ঘটনায় আদালতের মাধ্যমে আইনি সহায়তা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।’

মো: জিল্লুর রহিম আরও বলেন, আমি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িক এবং পেশায় একজন কৃষক ও ব্যবসায়ী আমি কারোর কোন সম্পত্তি দখল করিনি বা দখলের চেষ্টা করিনি। অথচ সম্প্রতি সুমন আমার জমির ধান লুট করে এবং করিম আমার এক প্রবাসীর ভাইয়ের বাজারের দোকান ঘর দখল করে। তারা নিজেরাই আমাদের সম্পত্তি দখল করে আমাকে মিথ্যা ভূমিদস্যু সাজিয়েছে। আমি বর্তমানে তাদের হুমকিতে নিরাপত্তহীনতায় ভুগছি এবং প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠ তদন্ত ও সঠিক বিচার প্রার্থনা করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে গ্রামবাসীর মধ্যে ইমাম উদ্দিন, আবদুর রহিম, মো: ইউসুফ, কামাল হোসেন উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *