ইকরামুল ইসলাম বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
শার্শা উপজেলার নিজামপুর ইউনিয়ানের গোড়পাড়ার বনমান্দার পাড়ার মৃত ফকির আহম্মাদের পুত্র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ রমজান আলীকে পূর্ব শত্রুতার জেরে হত্যাচেষ্টা, পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ।

২১শে নভেম্বর রবিবার সকাল ৯ ঘটিকায় রমজান আলী ব্যবসার উদ্দশ্যে গোড়পাড়া বাজারে তার নিজ মটর সাইকেল যোগে রওনা দেন। পথিমধ্যে দরিদূর্গাপুর নামক স্থানে মসজিদের পাশে আবুল কালামের ট্রলির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় তাকে পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক ট্রলি রমজান আলীর উপরে উঠিয়ে দেন। এতে রমজান আলী মটর সাইকেল সহ ট্রলির নিচে পড়ে যান। পরে ঘটনাস্থলে থাকা লোকজন তাকে দ্রুত উদ্ধার করে।

সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মটর সাইকেলটি ট্রলির নিচে পড়ে আছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রমজান আলীর সাথে মৃত আব্দুল কাদের সরদারের পুত্র আবুল কালামের সহিত রমজান আলীর জমিজমা নিয়ে পূর্ব শত্রুতা ছিলো। আজ যখন তিনি রাস্তা দিয়ে বাজারে যাচ্ছিলেন আবুল কালামের ট্রলির সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে পর্যাপ্ত জায়গা থাকা সত্তেও কেনো যে রমজানের মটর সাইকেলের উপর তুলে দিলো আমরা বুঝলাম না।

এবিষয়ে রমজান আলী বলেন, জমি জায়গার জেরে এর আগেও আমার সেজো ভাইকে পিটিয়ে জখম সহ হাত ভেঙ্গে দেয় সেটা এলাকা ভিত্তিক মীমাংসার কথা বললে আমার চুপ থাকি কিন্তু পরে বিষয়টি তারা মীমাংসা করেননি। আজ আবার আমাকে প্রাণনাশের চেষ্টায় পরিকল্পিত হামলা চালায়। আমি এবিষয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে একটি অভিযোগ করেছি এবং অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

এবিষয়ে অভিযুক্ত আবুল কালামের বাড়িতে গেলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি সামনে আসেননি। তার বড় ভাই আব্দুল মালেক বলেন, আমার ভাই দেড় মাস হলো নতুন ট্রলি কিনেছে। সে এখনো ভালভাবে ট্রলি চালাতে পারে না। এটা শুধুমাত্র একটা দূর্ঘটনা কিন্তু তারা পূর্ব শত্রুতার জেরে এটা এখন বড় করছে।

এবিষয়ে গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ আকরাম হোসেন বলেন, এবিষয়ে আমি শুনেছি এবং একটি অভিযোগও হয়েছে। আমরা তদন্তপূর্বক আইনি ব্যবস্থা নেবো।

Leave a Reply