ইকরামুল ইসলাম বেনাপোল প্রতিনিধি:
শার্শার নিজামপুর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। দলীয় প্রার্থী মোঃ আব্দুল ওহাবকে সমর্থন দিয়ে বৃহস্পতিবার (১১ অক্টবর ) তিনি তার প্রার্থীতা প্রত‍্যাহার করেন।

বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিগত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকিট না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়লাভ করেন। আসন্ন নির্বাচনে দলের কাছে মনোনয়ন চেয়েও তিনি বঞ্চিত হন।

জানা গেছে, আবুল কালাম আজাদ ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে জয়লাভ করেন। এবারের ইউপি নির্বাচনে দলের কাছে মোট ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন। বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, নিজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সভাপতি আব্দুল ওহাব, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দীন তরফদার সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, যুবলীগ সভাপতি আলাউদ্দীন খাঁন, সাবেক যুবলীগ সভাপতি আশরাফুল আলম বাটুল, আওয়ামিলীগ নেতা, জাকির হোসেন খাঁন কাজল,সেলিম রেজা বিপুল, ডায়মন্ড মোড়ল,। এ সকল মনোনয়ন প্রত‍্যশীদের নাম কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে পৌছালে। দলীয় সিদ্ধান্তে নৌকা প্রতীক দেওয়া হয় নিজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের বর্তমান সভাপতি আব্দুল ওহাব কে।

দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে এবারও আবুল কালাম আজাদ বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার সকল প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। তবে মত পরিবর্তন করে মনোনয়নপত্র প্রত‍্যাহারের শেষ দিন বৃহস্পতিবার তিনি তার প্রার্থীতা প্রত‍্যাহার করেন।

প্রার্থীতা প্রত‍্যাহারের পরবর্তী সময়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, দেশপ্রেম এবং সাংগঠনিক সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া ও সর্বোপরি জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আনুগত্য, বিশ্বাস ও আস্থা রেখে সার্বিক রাজনীতির কথা মাথায় রেখে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। সেই সঙ্গে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ আব্দুল ওহাবকে সমর্থন করছি। দলীয় প্রার্থীকে ভোট প্রদান ও বিজয়ী করতে তিনি তার কর্মী সমর্থকদের প্রতি অনুরোধ করেন।

এ বিষয়ে শিক্ষা অফিসার হাফিজুর রহমান বলেন নিজামপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বৃহস্পতিবার বেলা ৪.৩০ মিনিট পর্যন্ত একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তিনজন,মেম্বর পদ প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত‍‍্যাহার করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply