গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

নাকাইহাট গ্রামের বাকি মিয়ার সঙ্গে জমিসংক্রান্ত বিরোধ চলছিল মছির উদ্দিন ও তার স্বজনদের। এরই জেরে ২০১৩ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি বাকি মিয়ার ছেলে ১৩ বছর বয়সী আরিফুল ইসলামকে একা পেয়ে প্রতিপক্ষ মারধর করে।
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে এক শিশু হত্যা মামলায় পাঁচ আসামির আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।
জেলা সিনিয়র দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক বুধবার দুপুরে এই রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত ও খালাস পাওয়া আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
দণ্ড পাওয়া ব্যক্তিরা হলেন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাইহাট গ্রামের গোলজার রহমান খন্দকার, তার ভাই সাহেব খন্দকার, একই গ্রামের হারুন খন্দকার, ফরিদুল ইসলাম খন্দকার ও জরিদুল ইসলাম খন্দকার।
মামলা থেকে খালাস পেয়েছেন আনোয়ারা বেগম ও হালিমা বেগম। তাদের সবার বাড়ি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাইহাট এলাকায়।
নাকাইহাট গ্রামের বাকি মিয়ার সঙ্গে জমিসংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল একই গ্রামের মছির উদ্দিন ও তার স্বজনদের। এরই জেরে ২০১৩ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি বাকি মিয়ার ছেলে ১৩ বছর বয়সী আরিফুল ইসলামকে একা পেয়ে প্রতিপক্ষ মারধর করে।
পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যালে মারা যায় শিশুটি।
এ ঘটনায় ১৮ ফেব্রুয়ারি গোবিন্দগঞ্জ থানায় সাতজনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন শিশুটির নানা জালাল উদ্দিন।
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ প্রিন্স জানান, দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত পাঁচ আসামিকে সাজা দিয়েছে। মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত তারা কারাভোগ করবেন। এ ছাড়া দুইজনকে খালাসও দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *