মোঃ নূর হোসাইন, নকলা,(শেরপুর) প্রতিনিধি:

শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়াল মেয়ে মারা যাওয়ার ১ দিন পরেই মেয়ে হারানোর শোকে মারা গেছেন; ইন্না নিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিউন। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আউয়াল উপজেলার চরঅষ্টধর ইউনিয়নের কাজাইকাটা গ্রামের কান্দাপাড়া এলাকায় মৃত আব্দুল করিমের ছেলে।

২৪ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে উপজেলার টালকী ইউনিয়নের সাইলামপুর গ্রামের মেঝো মেয়ের স্বামীর বাড়িতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আউয়াল শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মরহুমের ছোট মেয়ের জামাতা মো. শফিকুল ইসলাম উজ্জল ও মরহুমের ছোট ভাই মো. আকরাম হোসেন মৃত্যুর সত্যতা ও বিবরণ নিশ্চিত করেছেন।

আগামী কাল ২৫ এপ্রিল রবিবার বেলা ১১টার সময় কাজাইকাটা কান্দাপাড়া এলাকায় মরহুমের নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন শেষে মরহুমের যানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। যানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক গোরস্থানে মরদেহ কবরস্থ করা হবে বলে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

জাতীয় পরিচয় পত্র (এনআইডি) অনুযায়ী মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর ৯ মাস ২৭ দিন। স্ত্রী হারা পুত্র সন্তান হীন এ বীর সন্তান ৪ মেয়ে ও নাতি নাতনীসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। নকলা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের অফিস সূত্রে জানা গেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়ালের লাল মুক্তিবার্তা তালিকা নম্বর ০১১৪০৩০০১০ এবং গেজেট তালিকা নং ১০৮১।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়ালের ছেলে সন্তান না থাকায় উপজেলার টালকী ইউনিয়নের সাইলামপুর গ্রামের মেঝো মেয়ের স্বামীর বাড়িতে বসবাস করতেন। গত কাল তাঁর বড় মেয়ের যানাজা নামাজ শেষে বাড়িতে আসার পরে অসুস্থতা অনুভব করেন। পরে আজ শনিবার ইফতারের সময় হঠাৎ তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই তিনি মারা যান।

মরহুমের ছোট মেয়ের জামাতা মো. শফিকুল ইসলাম উজ্জল ও মরহুমের ছোট ভাই মো. আকরাম হোসেন বলেন, বড় মেয়ে হারানোর শোক সইতে না পেরে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়াল মারা গেছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়ালের মৃত্যুতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জাহিদুর রহমান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মো. বোরহান উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহাম্মেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম হিরু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল মনসুর, পৌরসভার মেয়র মো. হাফিজুর রহমান লিটন, চরঅষ্টধর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানী, নকলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মোশারফ হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সরকার বাবুসহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, জেলা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের নেতৃবৃন্দ ও উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগন, উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ, বিভিন্ন পেশাশ্রেণীর অনেকে আলাদাভাবে শোক প্রকাশের পাশাপাশি মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবদুল আউয়াল মেয়ে মারা যাওয়ার ১ দিন পরেই মেয়ে হারানোর শোকে মারা গেছেন; ইন্না নিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিউন। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আউয়াল উপজেলার চরঅষ্টধর ইউনিয়নের কাজাইকাটা গ্রামের কান্দাপাড়া এলাকায় মৃত আব্দুল করিমের ছেলে।

২৪ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে উপজেলার টালকী ইউনিয়নের সাইলামপুর গ্রামের মেঝো মেয়ের স্বামীর বাড়িতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আউয়াল শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মরহুমের ছোট মেয়ের জামাতা মো. শফিকুল ইসলাম উজ্জল ও মরহুমের ছোট ভাই মো. আকরাম হোসেন মৃত্যুর সত্যতা ও বিবরণ নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *