মোঃ সাজিদ হাসান শান্ত
(উপজেলা প্রতিনিধি):
শেরপুরের শ্রীবরদীতে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে দিনব্যাপী বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
২২ মে শনিবার সামাজিক সংগঠন ‘মিঞাপাড়া সমাজকল্যাণ সংস্থা’র আয়োজনে এবং রক্তসৈনিক বাংলাদেশ-এর শ্রীবরদী উপজেলা শাখার স্বেচ্চাসেবকদের কারিগরি সহায়তায় উপজেলার কুড়িকাহনীয়া ইউনিয়নের মিঞাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়।
কুড়িকাহনীয়া ইউনিয়নের কুড়িকাহনীয় মধ্যপাড়া, দক্ষিণপাড়া ও গড়পাড়া, খড়িয়াকাজিরচর ইউনিয়নের বীরবান্ধা ও পোড়াগড় এলাকার তিনশতাধিক মানুষের রক্তের গ্রুপ বিনামূল্যে পরীক্ষা করা হয়।
ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেই অনুষ্ঠানে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মিঞাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিক নাজমা আক্তার, সহকারী শিক্ষক আব্দুল হামিদ, আব্দুল হাই, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ইয়ারুল ইসলাম, রক্তসৈনিক বাংলাদেশ,গাজীপুর জেলা শাখার সমন্বয়ক মোঃ সোহেল রানা এবং শ্রীবরদী উপজেলা শাখা‘র

লাল মিয়া, আব্দুল আজিম, মিঞাপাড়া সমাজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি প্রকৌশলী তারিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক বিল্লাহ হোসেন সোহাগ, সদস্য মোছা. কাউসারুন্নাহার কাকলি, রতন আহমেদ, আব্দুল জলিল, মোক্তার আলীসহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন।
অবসরপ্রাপ্ত আবুল কালাম আজাদ বলেন, রক্ত দেওয়া নিয়ে অনেকের মনে ভীতি ও ভ্রান্ত ধারণা কাজ করে। তাই জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে এ ধরনের ক্যাম্পেইন গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। তিনি আরও বলেন, রক্ত দান করলে শরীরের কোনো ক্ষতি হয় না, বরং নিজের শরীরের উপকারের পাশাপাশি বেঁচে যেতে পারে একটি জীবন। এই সচেতনতা মূলক কথাটি গ্রামীণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেতে পারে বলে তিনি মনে করেন। তাছাড়া এ ধরনের কার্যক্রম প্রতিটি এলাকাতে করতে পারলে মানুষ উপকৃত হবেন বলে তিনি জানান।
মিঞাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিক নাজমা আক্তার বলেন, দুর্ঘটনায় আহত, ক্যান্সার বা অন্য কোন জটিল রোগে আক্রান্ত, অস্ত্রোপাচার কিংবা প্রসূতি মা ও থ্যালাসেমিয়ার মতো বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় রক্ত সঞ্চালনের প্রয়োজন হয়। কিন্তু এই গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আমাদের রক্ত দাতা খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। তাই ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন শেষে তাদের রক্তের গ্রুপ, নাম ও মোবাইল নম্বর সহ একটি ডাটাবেইজ তৈরী করে রাখা জরুরি বলে তিনি মনে করেন।
এ ব্যাপারে মিঞাপাড়া সমাজকল্যাণ সংস্থার সভাপতি প্রকৌশলী তারিকুল ইসলাম বলেন, আমরা যারা শিক্ষিত, তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা আছে। এই দায়বদ্ধতার স্থান থেকে এলাকার মানুষকে সঠিক পথ দেখানোর জন্য এ সংস্থাটি বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন মূলক কাজ করে আসেছে। এর অংশ হিসেবে সংগঠনটির স্বেচ্ছাসেবকদের নিজস্ব অর্থায়নে সংস্থার পক্ষ থেকে দিনব্যাপী বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইনের আয়োজন করা হয়েছে। সকলের সার্বিক সহযোগিতা পেলে এ কাজের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা জানান।
অন্যদিকে রক্তসৈনিক বাংলাদেশ, শ্রীবরদী উপজেলা শাখা‘র সভাপতি সাজিদ হাসান শান্ত বলেন শ্রীবরদী উপজেলায় যে কোন সংগঠন এমন রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্প এর আয়োজন করলে রক্তসৈনিক টিম তাদের ক্যাম্পিং অনুষ্ঠান বাস্তবায়নে স্বেচ্ছায় কাজ করবে বলে আশ্বাস ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *