মেছবাহুল আলম
ভুরুঙ্গামারী প্রতিনিধি :
সন্তানের জন্মনিবন্ধন করতে এসে ভোগান্তিতে পড়েছন
সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করাতে তার জন্মনিবন্ধন করাতে আসেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে। এসেই পড়েন ভোগান্তিতে।
দেশে নতুন নিয়মে সন্তানের জন্মনিবন্ধন করতে প্রয়োজন বাবা ও মায়ের জন্মনিবন্ধনের কাগজ। বাবা কিংবা মায়ের জন্মনিবন্ধনে প্রয়োজন পড়ছে তাঁদের বাবা-মায়ের জন্মনিবন্ধন। অর্থাৎ শিশুর জন্মনিবন্ধনে দাদা-দাদীর জন্মনিবন্ধনের কাগজের প্রয়োজন পড়ছে। কিন্তু দাদা-দাদীর জন্মনিবন্ধনের কাগজ না থাকায় পড়তে হচ্ছে ভোগান্তিতে। এ অবস্থায় ‘আদি’ পুরুষের নিবন্ধন নিয়ে বেগ পেতে হচ্ছে জন্মনিবন্ধন করতে আসা প্রতিটি নাগরিকের।
তবে এখানেই কিন্তু শেষ নয়। জন্মনিবন্ধনের প্রয়োজনে লাগবে বাড়ির হোল্ডিং কর পরিশোধের রশিদ, ভাড়াটিয়া হলে মালিকের। আরো আছে, শিশুর জন্মের নিশ্চয়তার জন্য প্রয়োজন চিকিৎসকের সনদ। এরপর রয়েছে নানা ধরণের প্রক্রিয়া। আর এসব প্রক্রিয়া শেষে শিশুর জন্মনিবন্ধন পেতে লেগে যাচ্ছে দিনের পর দিন। স্কুলে ভর্তির জন্য প্রস্তুত শিশুদের অভিভাবকদের ভোগান্তির যেন শেষ নেই। কোনো কারণে নামের ভুল হলে ভোগান্তি যেন আরো চরমে। সংশোধনের কোনো নিয়ম জানা নেই বলে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে উপকারভোগীদের।

ভুক্তভোগীরা জানায় বিশেষ করে স্কুলে ভর্তির জন্য শিশুদের জন্মনিবন্ধন করতে আসা অভিভাবকেরা সমস্যায় পড়ছেন। সরকার যদি নিয়মটা সহজ করে দেন তাহলে ভালো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *