রাশেদুল হক অন্তর
বাঘা প্রতিনিধিঃ
রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় বেশ কয়েকটি কয়েকটি বড় সবজি হাট রয়েছে। এই সমস্ত সবজি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে উৎপাদিত হয়। যেমন- আড়ানি, বাউসা, সুলতান পুর ,পাকুড়িয়া মাঠে। এর মধ্যে আড়ানী তে সব্জির চাষ-আবাদ বেশি হয়। আড়ানী থেকে এনে কাচামালের ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন হাটে বিক্রি করে থাকে । এছাড়াও দুর দুরান্ত থেকে তারা বিভিন্ন প্রকার কাচা মাল সরবরাহ করে থাকে।

বাঘা বাজার ও আড়ানী বাজারসহ বিভিন্ন বাজারে ঘুরে জানা যায়, এই সপ্তাহের বাজার মূল্য আগের সপ্তাহের চেয়ে কাঁচামাল (সবজি)’র দাম অনেক কম। বাঘা বাজারের পাইকারি ও খুচরা ব্যাবসায়ী আরিফুল ইসলাম বলেন – এ বছর আবহাওয়া ভাল হওয়ার কারণে কাচামালের ব্যাপক উৎপাদন হয়েছে এবং তাদের পাইকারী বাজারে দাম কম।
জানা যায়,বর্তমান সবজি বাজারের খুচরা বিক্রির মূল্য তালিকা – আলু প্রতি কেজি ১০-১৫ টাকা, পটল প্রতি কেজি ১৫- ২০ টাকা, বেগুন প্রতি কেজি ২০-৩০ টাকা, শসা দেশি প্রতি কেজি ৩০-৪০ টাকা, হাইব্রিড প্রতি কেজি ২০-৩০টাকা, কাচা মরিচ প্রতি কেজি ৩০- ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রতি কেজি ১০- ১৫ টাকা, ঢেরস প্রতি কেজি ১৫-২০ টাকা, পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৩০-৩৫, রসুন প্রতি কেজি ৩০-৪০ টাকা । স্থানীয়রা জানান, প্রতিটি সবজির দাম আগের বাজার মূল্য থেকে বর্তমান বাজার মূল্য অনেকটা কম। উপজেলার বাঘা বাজারের সবজি ক্রেতা পানিকুমড়া এলাকার আবুল হাসেম বলেন, রমজানের শুরুতে বাজারের প্রতিটি সবজির দাম ছিল আকাশ ছোঁয়া। এক দিকে রমজান আর অন্য দিকে লকডাউন এবং দ্রব্য মূল্যের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধি। এতে সাধারণ ক্রেতারা ছিল অতিষ্ঠ। কিন্তুু বর্তমানে সবজির দাম কিছুটা কম হওয়ায় সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে ।

আগের তুলনায় বর্তমান বাজারে সবজির দাম কমতে থাকায় ফিরতে শুরু করেছে সাধারণের মনে স্বস্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *