মিরু হাসান বাপ্পী
আদমদিঘী (বগুড়া) প্রতিনিধি, :

বগুড়ার সান্তাহার-ভায়া তিলকপুর-জয়পুরহাট এরমধ্যে চলাচলের একমাত্র সড়কটিতে খানাখন্দক সৃষ্টি হওয়ায় মারাত্বক ঝুকি নিয়ে চলছে যানবাহন। এতে পথচারীদেরও চলাচলে ঝুকি এবং দিন দিন দুভোর্গ বাড়ছে । সান্তাহার-নওগাঁ সড়ক থেকে বগুড়া জেলার শেষ সিমানা পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার এ সড়কের বেশ কিছুস্থানে কার্পেটিং উঠে গিয়ে বড় বড় খানাখন্দকের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এসড়ক দিয়ে ঝুকি নিয়ে চলছে যানবাহন।

সেই সাথে পথচারীদের চলাচলে চরম দূভোর্গ পোহাতে হচ্ছে। সড়কটি সংস্কার বা গর্তের স্থানগুলো ঠিকঠাক না করায় দিন দিন বারছে দুভোর্গ। বিষেশ করে ছাতিয়ানগ্রামের বাগবাড়ী দক্ষিণ পাশে সড়কের মাঝখানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় ভারি যানবাহনগুলো মারাত্বক ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে। বিলম্বে সড়কটি সংস্কার করা না হলে যেকোন সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে এসড়ক দিযে চরাচলকারী ভুক্তভুগিরা জানিয়েছেন।

এসড়ক তিয়ানগ্রাম,তিলকপুর,জাফরপুর,আক্কেলপুর, জামালগঞ্জ,ও জয়পুরহাট এলাকার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র পথ এই সড়ক। চলাচলের পাশাপাশি গুর“ত্বপৃর্ণ এই সড়ক দিয়ে এসব এলাকার উৎপাদিত আলু, পোটল,বেগুন,পিয়াজ, রসুনসহ বিভিন্ন প্রকারের সবজি,ধান-চালসহ বিভিন্ন ধরনের মালামালগুলো রাজধানী ঢাকাসহ দেশেরে স্থানে ট্রাক যোগে পরিবহন করা হয়। এলাকার কৃষকের উৎপাদিত আলু, পোটল, বেগুন,মুলা,কপি বিক্রির জন্য তিলকপুরে সপ্তাহে দুটি এবং আক্কেলপুরের কোলাতে দুটি হাট বসে। এসব হাটগুলো থেকে সবজি ব্যবসায়ীরা শত শত মন সবজি ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যায়। জরুরী ভিত্তিতে গর্ত সৃষ্ট হওয়া স্থানগুলো ঠিক করা না হলে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

সান্তাহার থেকে ছাতিয়ানগ্রামের উলে­খিত স্থান পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার রাস্তার বেশ কয়েকটি জায়গায় বড়গর্ত সৃষ্ঠি হয়ে বেহাল দশায় পরিনত হয়েছে। এতে মারাত্নক ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন, এবং স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার শতশত শিক্ষার্থী পথচারীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ওইসব সৃষ্টি খানাখন্দকে প্রতিনিয়ত যানবাহন পরে যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা পরে থাকে। এছাড়া ও এ সড়ক দিয়ে রোগী নিয়ে চলাচল করতে জনসাধারণকে বিপদের মূখে পরতে হয়।

বর্ষা মৌসুমের কারনে প্রতিদিন কোন না কোন স্থানে পানি জমে রাস্তার বিটুমিন উঠে গিয়ে ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হচ্ছে। এব্যাপারে জর“রী ভিত্তিতে সড়কটি সংস্কার বা মেরামতের জন্য সংশি­ষ্ট কর্তৃপক্ষের আশুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভুগীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *