মিরু হাসান বাপ্পী
বগুড়া প্রতিনিধি:তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গোলাম রসূল (৩১) নামের এক ব্যক্তিকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এসময় ৫ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচার মো. জিয়াউর রহমান। দণ্ডপ্রাপ্ত গোলাম রসূল বগুড়ার কাহালুর পাঁচগ্রাম এলাকার মৃত নওয়াব আলীর ছেলে। মঙ্গলবার দুপুরে আসামিকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন-২০০৬ এর ৫৭ ধারায় জেল ও জরিমানা প্রদান করেন আদালতের বিচারক। তবে আসামি পলাতক আছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ভিক্টিম বগুড়া সরকারি আজিজুল হক বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অর্নাস তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তিবি বগুড়ার কাহালু এলাকার বাসিন্দা। ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে আসামি গোলাম রসূলের মোবাইলে পরিচয় হয়।

সেই সূত্রে প্রেম, এক পর্যায়ে নোটারী পাবলিকের এফিডেভিট করে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পরে ২০১৬ সালের ১০ আগস্ট ভিক্টিম জানতে পারেন গোলাম রসূলের বাড়িতে স্ত্রী ও সন্তান আছে। এরপরে ওই বছরের ২১ আগস্ট বগুড়া কাজী অফিসে আসামিকে তালাক দেয় ভিক্টিম। তালাক নোটিশ পাওয়ার পরে ভিক্টিমের অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় আসামি।

এর পরিপেক্ষিতে ২৪ আগস্ট ভোরে একটি খামে ভিক্টিমের দুই কপি অশ্লীল ছবি তার (ভিক্টম) বাড়ির সামনে ফেলে রেখে যায়। পরে ভিক্টিমের বাবা ভিক্টিমকে জানায়। এসময় ভিক্টিম তার বাবাকে জানায়- ‘তার অগোচরে আসামি ছবিগুলো তুলেছে। ’ এর পরে আসামির সঙ্গে যোগাযোগ করে অশ্লীল ছবি না ছাড়ার জন্য অনুরোধ করা হয়। তবুও আসামি না শুনে উল্টো হুমকি দেয়।

উল্লেখ্য, এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ২৬ জানুয়ারি বগুড়ার কাহালু থানায় গোলাম রসূলকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন ভিক্টিম।

Leave a Reply