মাহী তানভীর, চারঘাট ( রাজশাহী) প্রতিনিধি:
পাট বাংলাদেশের সোনালী আঁশ। আর এ পাট থেকেই প্রতি বছর বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা আর্জন করছে সরকার। গত মৌসুমে দাম ভালো পাওয়ায় পাট চাষে বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার চাষিরা। এবার উপজেলায় চার হাজার হেক্টর জমিতে পাট চাষ হচ্ছে এবং আবহাওয়া ভালো থাকায় পাটের ফলন আশানুরূপ হবে বলে জানিয়েছে জেলা কৃষি কর্মকর্তা।

উপজেলায় ঘুরে দেখা যায়, চৈত্র-বৈশাখ মাসে পাটের বীজ বপন করেছেন কৃষকরা। প্রথমে ডেপ, পটাশ আর গোবর ছিটিয়ে তারা পাটের চাষের জমি তৈরি করছেন। ২০ থেকে ২৫ দিন নাগদ গাছ একটু বড় হওয়ার পর ইউরিয়া সার প্রয়োগ করেছেন। দুই থেকে আড়াই মাস পর তারা পাট কাটা শুরু করবেন। তা আবার আঁটি বেঁধে ডোবায় জাগ দেবেন।

বিভিন্ন পাট ক্ষেত ঘুরে দেখা গেছে, এবার পাট মৌসুমের শুরু থেকে নিয়মমাফিক জমিতে বর্ষার পানি পেয়েছে। কারণ পাট চাষে বর্ষার পানি একটি বড় ধরনের উপকরণ। কৃষকরা আশা করছেন, এবার পাট বেড়ে ওঠা থেকে শুরু করে তা জাগ দিতে পানির অভাব হবে না।

পাট একটি অর্থকরী ফসল, পাটের উপর নির্ভর করে আসছে একটি মৌলিক চাহিদা। মানুষের বস্ত্রসহ নানা প্রকার প্রয়োজনীয় জিনিস তৈরি হয় এই পাট থেকে। পাট থেকে সুতা, বস্তা, ঝুড়ি এবং সুতা দিয়ে পোশাক কারখানাগুলোতে তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন প্রসাধনী। সেসব প্রসাধনী বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হয়ে থাকে।

চারঘাট পৌর এলাকার পাট চাষি মাসুদ রানা বলেন, প্রতি বছর আমি পাট চাষ করে থাকি। গতবার পাটের ভালো দাম পেয়েছি। তাই এইবার চার বিঘা জমিতে পাট চাষ করছি।

সরদহ এলাকার কৃষক মোতলেব হোসেন বলেন, আমি দেড় বিঘা জমিতে পাট চাষ করছি। জমিতে গাছ ভালো হয়েছে, বর্ষার পানি পর্যাপ্ত পরিমাণে পাচ্ছে। আশা করি এইবার প্রতি বিঘায় ১০ থেকে ১২ মণ পাট পাবো।

চারঘাট উপজেলা ভারপ্রাপ্ত কৃষি অফিসার খন্দকার ফিরোজ মাহমুদ জানান, উপজেলায় এবার ৪ হাজার হেক্টর জমিতে পাট চাষ করছেন কৃষকরা। গতবার পাট চাষ হয়েছিল ১৬শ হেক্টর জমিতে। পাটের দাম ভালো পাওয়ায় এবার কৃষকরা পাট চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। এবার আবহাওয়া ভালো আছে, আশা করছি কৃষকেরা তাদের আশানুরূপ ফসল পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *