কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ-

অগ্নিকাণ্ডের পর স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের সেবা কার্যক্রম। বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতালের স্থানান্তর করা রোগীরা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চিকিৎসা জন্য ফিরছেন আড়াই’শ শয্যার সরকারি হাসপাতালে।

চিকিৎসকরা বলছেন, হঠাৎ রোগীরা ফিরে আসায় সেবা দিতে একটু সমস্যা হচ্ছে। আর অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধানে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক।

আড়াই’শ শয্যার কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল। যেখানে সবসময় থাকে রোগীর বাড়তি চাপ। কিন্তু গতকাল বুধবার অগ্নিকান্ডের পর অনেক রোগী চলে যান বেসরকারি হাসপাতালে।

এরপর বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল থেকে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে হাসপাতালের সেবা কার্যক্রম। চালু হয়েছে হাসপাতালের প্রতিটি ইউনিট। আর বেসরকারি হাসপাতালগুলো থেকে ফিরতে শুরু করেছে রোগীরা। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে রোগীর সংখ্যাও।

পঞ্চম তলায় চিকিৎসাধীন সার্জারি ওয়ার্ডের রোগী হাফিজ বলেন, বুধবার অগ্নিকাণ্ডের পর হাসপাতাল থেকে বের হয়ে নিচে অবস্থান করছিলাম। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর রাতে পুনরায় হাসপাতলে ঢুকে পড়ি। এখন চিকিৎসকরা চিকিৎসা দিচ্ছেন, মোটামুটি সুস্থ আছে।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. রফিক-উস্-ছালেহিন বলেন, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি অগ্নিকান্ডের কারণ অনুসন্ধান করে আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিবে।

উল্লেখ্য, বুধবার বিকেল ৫টার দিকে হঠাৎ করে হাসপাতালের নিচতলার পরিত্যক্ত স্টোর রুমে আগুন লাগে। এরপর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে অর্ধশত রোগী আহত হন। তারপর দ্রুত আইসিইউ এবং জরুরি সেবা নিতে আসা ৬০০ রোগীকে বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তর করে কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *