মোঃ আবু তৈয়ব. হাটহাজারী ( চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি :

রোববার (২ মে) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে হাটহাজারী উপজেলার ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের উদালিয়া এলাকার সোনাই ত্রিপুরা পল্লীর পার্শ্বস্থ পাহাড় থেকে মাটি কাটার সময় মাটির চাপায় শ্রমিক আনোয়ার হোসেন মুন্নার মৃত্যু হয়।

নিহত মুন্না একই এলাকার আব্দুল হামিদ চৌধুরীর বাড়ীর মোঃ শামসুল আলমের ছেলে বলে জানা গেছে।

পাহাড়ে মাটি কাটতে কাটতে যখন গভীরে যায় ঠিক তখন উপর থেকে মাটি চাপা পড়ে মুন্নার উপর।

জানা যায়, তখন মাটি চাপা থেকে তড়িঘড়ি করে বের করে আনতে নিহত মুন্নার একটি হাতও কেটে নেওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা মুন্নাকে উদ্ধার করে ফটিকছড়ি নাজিরহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা জানান, দক্ষিণ সোনাইর কুল এলাকার মাটি ও গাছ খেকো নবী সব সময় গাছ ও মাটি কেটে দেদারছে বিক্রি করে আসছে। প্রতিদিনই ১০/১৫ জন শ্রমিক দিয়ে পাহাড় থেকে মাটি কেটে এলাকার দালান, বাড়িঘর ও মার্কেট নির্মাণে বিক্রি করে। সকাল থেকে শুরু করে সারা রাত চলে মাটি কাটা। তার বিরুদ্ধে বনবিভাগের কয়েকটি মামলা রয়েছে। আমরা রাতে ঘুমাতে পারি না। তাদের গাছ ও মাটি বহনের গাড়ির আওয়াজের জন্য। স্থানীয়রা তাদের কাছে জিম্মী। প্রশাসন থেকে কোন দিন একটি অভিযানও চালায়নি। বনবিভাগ থেকে কেউ আসার আগে বিটের সদস্যরা জানিয়ে দেয়।

আর সেই ভিটে তৈরিতে অধিকাংশ জায়গায় ব্যবহার করা হচ্ছে পাহাড়ি মাটি। তাই উপজেলায় মাটির চাহিদা তুঙ্গে।

এ সুযোগে মাটির যোগান দিতে পাহাড়ে চোখ পড়েছে ‘মাটি খেকো’ চক্রের। বিক্রি করা হচ্ছে পাহাড়ি মাটি, হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ।

প্রশাসনের সুনজর কামনা করেছেন স্থানীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *