(ধুনট) বগুড়া প্রতিনিধি :

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে টানা তৃতীয় বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হলেন আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত বিদ্রোহী প্রার্থী এ জি এম বাদশাহ্। ৩০ জানুয়ারি সন্ধ্যায় উপজেলা মিলনায়তনে ভোট গননা শেষে সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোকাদ্দেস আলী নির্বাচনী প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী তাকে বেসরকারি ভাবে মেয়র ঘোষণা করেন।
জগ প্রতিক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৩ হাজার ৯ শত ৬ ভোট এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী টি আই এম নুরুন্নবী তারিক নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ হাজার ২ শত ৩২ ভোট। এছাড়াও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বি এন পি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলীমুদ্দিন হারুন মন্ডল ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ২ শত ২৩ ভোট ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সি পি বি মনোনীত মেয়র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহা সন্তোষ কাস্তে প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন মাত্র ৬৮ ভোট।

৩০ জানুয়ারি শনিবার সকাল ৮ টা হতে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো ধুনট পৌরসভার ভোট অনুষ্ঠিত হয়। ২৯ জানুয়ারি বিকেলে সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোকাদ্দস আলী প্রিজাইটিং অফিসারদের নিকট ব্যালট ব্যাতিত সকল নির্বাচনী সরঞ্জামাদি বুঝিয়ে দেন এবং নির্বাচনের দিন সকালে ব্যালট পেপার কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়ে আসেন।এবারের পৌর নির্বাচন শঙ্কামুক্ত সুষ্ঠু নিরপেক্ষ করতে পুলিশ প্রশাসন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রতিটি কেন্দ্রে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পুলিশ ও একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্টেট উপস্থিত ছিলেন। ভোট গ্রহণ চলা কালে ৯ নং ওয়ার্ড চর ধুনট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট কেন্দ্রে অবৈধভাবে প্রবেশ ও জগ প্রতীকের নির্বাচনী এজেন্ট মারধরের অভিযোগে নৌকা প্রতীকের দুই সমর্থককে ভ্রাম্যমাণ আদালত ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং ৫ নং ওয়ার্ডে জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টায় দু’জনকে আটক করে রাখা হয়।
পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ১১ হাজার ৭ শত ১৩ এর মধ্যে উপস্থিত ভোটার সংখ্যা ৯ হাজার ৫ শত ৪৮ জন।উপস্থিতির শতকরা ৮১.৫১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *